শুক্রবার, ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৮ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

মানিকপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুর রশিদের উঠান বৈঠকে জনতার ঢল

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় রয়েছে ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদ। মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদ তার মধ্যে অন্যতম। মানিকপুর ইউনিয়নের আয়তন ৩,২৫২ একর (১৩.১৬ বর্গ কিলোমিটার)। কল্যানপুর গ্রামের মৃত সুলতান মিয়া ও মক্তবের নেছার ঘরে জন্ম গ্রহণ করেন খন্দকার আব্দুর রশিদ।

তিনি মানিকপুর ইউনিয়ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সহ-সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হাজী খন্দকার আব্দুর রশিদ। বিগত সময়ে ক্যাপ্টেন এ বি তাজুল ইসলাম এমপি’র সার্বিক সহযোগিতায় ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক মো. নূরুল ইসলাম এর নেতৃত্বে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন মানিকপুর ইউনিয়নকে।

১৩নং মানিকপুর ইউনিয়নের কল্যাণপুর গ্রামের ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডে আব্দুর রশিদের উঠান বৈঠকে জনগণের ঢল নেমেছে। এলাকার শতশত নারী পুরুষ, শিশু কিশোর আব্দুর রশিদের উঠান বৈঠকে এসে উপস্থিত হয়েছে। ইতোপূর্বে ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডে কোন উঠান বৈঠকে এতো মানুষের সমাগম দেখা যায়নি। সাধারণ মানুষ স্বস্তঃস্ফূর্তভাবে মানিকপুর ইউনিয়নের প্রবীণ নেতা আব্দুর রশিদের উঠান বৈঠকে তার কথা শুনার জন্য এসেছে। তার কারণ জানতে চাইলে এলাকার বিভিন্ন সাধারণ জনগণ জানান, করোনার ভয়াবহ সময়ে রাতের অন্ধকারে আব্দুর রশিদ তাদের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পাঠিয়েছিল এবং এখনও নিম্ন আয়ের মানুষকে বিভিন্নভাবে সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছে। কৃতজ্ঞতাবোধের সেই জায়গা থেকেই তারা এসেছেন। বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সাল স্বাধীনতার পর গ্রামের লোক ঐক্য না থাকার কারনে কল্যাণপুর কেউ চেয়ারম্যান হয়নি। তাই কল্যাণপুর গ্রাম থেকে এবার একক প্রার্থী হাজী খন্দকার আব্দুর রশিদকে ঘোষণা করে মাঠে কাজ করে যাওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ করেন। দল আব্দুর রশিদকে মানিকপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দিবে গ্রামের সর্বস্তরের জনগণ শতভাগ আশাবদী। এলাকার বিভিন্ন নেতারা আরও বলেন, আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য সকল প্রার্থীর চেয়ে হাজী খন্দকার আব্দুর রশিদ অনেক ভাল মানুষ। তার মতো মানুষ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে আর যাই হোক, এলাকার মানুষ অন্তত শান্তিতে বসবাস করতে পারবে। আর সেই কারণেই দল মত, ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে মানিকপুর ইউনিয়নের সকল জনগণ খন্দকার রশিদকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার জন্য একযোগে মাঠে নেমে পড়েছে। এলাকার মানুষের একটাই কথা, ভাল মানুষ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হোক।

হাজী খন্দকার আব্দুর রশিদ বলেন, মহান আল্লাহপাক আমাকে অনেক কিছু দিয়েছেন। আমাদের কোন অভাব নেই। অর্থনৈতিকভাবে আমি স্বচ্ছল। অতএব আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে সরকার থেকে যে সম্মানি ভাতা আসবে, সেই টাকাটাও এলাকার শিক্ষার উন্নয়নে ব্যয় করা হবে। আমি এলাকাবাসীকে দিতে এসেছি। মানুষের সেবা করার প্রত্যয় নিয়েই মানুষের সেবার জন্য আমি মাঠে নেমেছি। দল যে সিদ্ধান্ত দিবে আমি তা মেনে নিব। এলাকাবাসীর কাছে আমার একটাই চাওয়া, তারা যেন পূর্বের ন্যায় এবারও সাপোর্ট করে। ইনশাল্লাহ এলাকাবাসীর দোয়া ভালবাসা ও সাপোর্ট নিয়েই আমি আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হব। ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের উঠান বৈঠকে রশিদ আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নীতি ও আদর্শকে বুকে ধারণ ও লালন করেই পথ চলেছি। এবং আমার নেতা ক্যাপ্টেন এ বি তাজুল ইসলাম এমপি মহোদয়ের দিকনির্দেশনা মোতাবেক একটি সুন্দর উন্নত ও সমৃদ্ধ ১৩নং মানিকপুর ইউনিয়ন গড়তে আমি অঙ্গিকারবদ্ধ। তিনি ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের সকল মানুষের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাঞ্ছারামপুর কল্যাণ সমিতির যুগ্ন-সাধারণ এডভোকেট খন্দকার আওলাদ হোসেন, মো. হুমায়ন কবির (অব. পুলিশ অফিসার), মো. মুল্লুক হোসেন সাবেক মেম্বার, মানিকপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক এ,কে নাছির উদ্দিন, বাঞ্ছারামপুর উপজেলা যুবলীগের ত্রাণ সম্পাদক খন্দকার মাইনুদ্দিন, মো. জাকির হোসেন মেম্বার, মো. হামিদ মেম্বার, আব্দুস সাত্তার মেম্বার, সহ-সভাপতি বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ মো. আমীর হোসেন, আদিল, মোস্তাক, আব্দুর রহিম, মো. জুয়েল, সুমন, রাশেদ, সফি উল্লাহ- সহ গ্রামের ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামী লীগের এর সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং গ্রামের গণ্য- মান্য লোকজন।

Share with Others

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
ভাষা পরিবর্তন করুন »