বৃহস্পতিবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১৭ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
ads

আই হ্যাইট পলিটিক্স এ ধারণা বদলে দিচ্ছেন বর্তমান যুবলীগ নেতৃত্ব

টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধীতে ফুল দিতে গিয়ে নেতাকর্মীদের গাড়ীবহরের টোল গাড়ী থেকে নেমে নিজ হাতে পরিশোধ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের মাননীয় চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

পার্থক্য টা এখানেই।
পূর্বের যুবলীগ এবং এখনকার যুবলীগের পার্থক্য টা এখানেই।

দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকেই তার বাবার হাতে গড়া সংগঠনটিকে কলংকমুক্ত করে ঘষে মেজে জনকল্যানমুখী রাজনীতির ধারা প্রত্যেক নেতাকর্মীর অন্তরে গেথে দিচ্ছেন। বঙ্গবন্ধু পরিবারের প্রচারবিমূখ, অসম্বব মেধাবী এবং সাহসী এই মানুষটি পেশায় যে একজন আদর্শ শিক্ষক,তিনি জানেন শিক্ষা কিভাবে ছাত্রের মনে গেথে দিতে হয়।

হ্যাঁ, তিনি তা করে দেখাচ্ছেন..

বাংলার মুজীব আদর্শিক যুবসমাজের দায়ীত্ব গ্রহনকালে তিনি বলেছিলেন “আই হেইট পলিটিক্স এইরকম একটা ধ্যান ধারনা বাংলার যুবসমাজের মধ্যে তৈরী হয়েছে, আমি কথা দিলাম এই ধ্যান ধারনা থেকে আমি বাংলার যুবসমাজকে বের করে আনব”।

হাজারো মুজীব আদর্শিক যুবলীগ নেতাকর্মীর চোখে মুখে সেদিন আলোর ঝিলিক দেখেছি। টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া সারা বাংলার প্রতিটি যুবলীগ ইউনিটে লাখো কোটি নেতাকর্মী সেদিন আলোর আশায় বুক বেধেছিল।

হ্যাঁ, তিনি তা করে দেখাচ্ছেন..

দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথমেই তিনি ছুটে গেলেন এখানে ওখানে শীতার্তদের মাঝে কম্বল ও শীতবস্ত্র বিতরনে। তখনো হয়তো অনেকে বুঝতে পারেনি কি করতে যাচ্ছেন তিনি। কিছুদিন পরই করোনায় ছোবল হানল। সবাইকে নির্দেশ দিলেন অসহায় মানুষের পাশে দাড়াতে। তার নির্দেশে কিছু এম্বুলেন্স চালু হল করোনা রোগীদের যাতায়াতে দূর্ভোগ লাঘব করার জন্য। তার কাজের সুবিধার্তে বঙ্গবন্ধু কন্যা সবচেয়ে বিচক্ষন সিদ্ধান্ত আগেই নিয়ে রেখেছিলেন। তার শ্রেষ্ঠ আবিস্কার মাঈনুল হাসান খান নিখিল কে জুড়ে দিয়েছিলেন তার রানিং মেট হিসেবে। অসম্ভব সাহসী, সাংগঠনিক দক্ষতা সম্পন্ন, বিচক্ষন এই মানুষটি করোনার সেই লকডাউনের মত সময় যখন কেউ ঘর থেকে বের হতে পারেনি জান বাঁচাতে, নিজের জীবন বাজী রেখে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন অসহায় দরিদ্র দিন আনে দিন খায় এমন লোকগুলোর ঘরে আহার পৌছে দেবার জন্য।
মাঝে একসময় অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। হাসপাতালের বেডে বসেও তাকে সংগঠনের নেতাকর্মীদের তাগিদ দিতে শুনেছি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরে আবার লেগে পড়েছেন অসহায় মানুষের আহার জোগাড়ে। টেলিমেডিসিন শুরু করলো যুবলীগের ডাক্তারগন। হাসপাতালে হাসপাতালে পৌছুতে লাগল যুবলীগের পক্ষ থেকে সুরক্ষা সামগ্রী।

ততদিনে ম্যাসেজটা বুঝতে শুরু করে দিয়েছে যুবলীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। রাজনীতির প্রথম শর্ত যে মানবসেবা সেই মানবতার সেবায় মনোনিবেশের শিক্ষাই হাতে কলমে শেখাতে চাচ্ছেন তাদের প্রানপ্রিয় সংগঠনের চেয়ারম্যান-সেক্রেটারী।

এরপর যা শুরু হলো তা দেখলো সারা বাংলাদেশ। মহানগর উত্তর-দক্ষিন থেকে শুরু করে জেলা, জেলা থেকে উপজেলা ইউনিয়ন ওয়ার্ড পর্যন্ত লাখো যুবলীগকর্মী শামিল হলো এই মানবতার জয়গানে। নিজে প্রচন্ড অর্থকষ্টে থাকার পরও কাছের মানুষদের কাছে হাত পেতেও যুবলীগের নেতাকর্মীদের দেখা গেছে অসহায় মানুষের পাতে আহার তুলে দিতে। অসহায় কৃষকের মাঠে স্বেচ্ছাশ্রমে ধান কাটতে দেখা গেছে শত শত ইউনিট যুবলীগনেতাকর্মীকে। কিছু অসাধু নেতাকর্মীর কর্মফলের কালিমা নিয়ে যে যুবলীগ প্রশ্নবিদ্ধ ছিল সকল প্রশ্নের উর্দ্ধে উঠে সে যুবলীগ আজ পরশ-নিখিলের মানবিক যুবলীগ।

রাজনীতিতে সততা, আদর্শ, দেশপ্রেম, মানবতা ও বিচক্ষনতার বিকল্প নেই।হাতে কলমে শিখছে আজ দক্ষিন এশিয়ার সর্ববৃহৎ যুব সংগঠন যুবলীগের নেতাকর্মীরা। ভালো কাজের যেন প্রতিযোগীতা লেগে গেছে। আর সবই সম্ভব হচ্ছে মানবতার নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষন আবিস্কার শেখ ফজলে শামস পরশ এবং মাইনুল হাসান খান নিখিলের দক্ষ নেতৃত্বের কল্যানে।

হ্যাঁ, তিনি করে দেখাচ্ছেন..
তারা করে দেখাচ্ছেন..

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে অচীররেই এই যুবলীগ যে আলোর নেশায় মাতোয়ারা উজ্জীবিত এক যুবসমাজ গঠন করবে তা হলফ করে বলা যায়। এ এইচ এম মাহবুব আল গনি সোহেল সাবেক ছাত্রনেতা এবং যুবলীগ কর্মী।

Share with Others

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬৪,৯৪৭,৫৭৬
সুস্থ
৪৫,০৪২,৩৯৪
মৃত্যু
১,৫০১,৫১৬

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০