শনিবার, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
৮ই আগস্ট, ২০২০ ইং
১৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
ads

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার যশলং ইউনিয়নের ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে মা ও শিশুদের সেবা

মুন্সীগন্জ প্র‌তি‌নি‌ধিঃ টঙ্গীবাড়ী উপজেলার যশলং ইউনিয়নের ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে করোনার মধ্যেও করোনা যোদ্ধারা স্বাস্থ্য বিভাগে মা ও শিশুদের নিবিড় স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে এখানে আগত মা ও শিশুরাসহ অন্যান্য ব্যক্তিরা স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ সুবিধা ভোগ করছেন।
ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকের আওতায় যে সব মা ও শিশুদের ইপিআইয়ের আওতায় সেবা দেয়া হতো করোনার আগে একাধিক স্থানে। করোনার কারণে সেইসব একাধিক স্থান বা কেন্দ্রের সেবা পরে ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে প্রদানের ব্যবস্থা করা হয় সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ি।
এছাড়াও করোনার আগে ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিক কেন্দ্রের আশপাশের মা ও শিশুদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হতো যথাযথ নিয়ম অনুযায়ি। এদিকে ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে হত দরিদ্রদের মাঝে প্রতিদিনই চিকিৎসা সেবা প্রদান করে আসছে এ প্রতিষ্টানের দায়িত্বরত স্বাস্থ্য সহকারীরা।
ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে এখানকার মানুষদের দুই ধরণের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয়। এক এখানে স্বাস্থ্য সেবায় সাধারণ মানুষদের মাঝে বিনা মূল্যে ওষুধ ও চিকিৎসা প্রদান করা হয়ে থাকে। দুই ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে ইপিআইয়ের সেবা প্রদান করে চলেছে এর দায়িত্বে থাকা সরকারি স্বাস্থ্য সহকারীরা।
তাই এখানেও বিনা মূল্যে গর্ভবতী মা ও শিশুদের মাঝে ইপিআইয়ের টিকা প্রদান করা হচ্ছে। করোনার মধ্যেও এখানে শতভাগ সেবা প্রদান করা হয়েছে বলে এখানে আগাত সেবা গ্রহণকারী শিশুদের মা’রা দাবি করেছেন এ প্রতিবেদকের কাছে। করোনার মধ্যে ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে এ সেবা প্রদানের সময়ে মা ও শিশুরা কেউই করোনায় আক্রান্ত হন নি বলে খবর পাওয়া গেছে।
এছাড়া এখানে দায়িত্বরত কোন স্বাস্থ্য সহকারীরা করোনায় আক্রান্ত হননি বলে জোর দাবি উঠেছে। এটি এখানকার জন্য একটি ভালো খবর বলে এখানকার এলাকাবাসী দাবি করেছেন। ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে দায়িত্বরত স্বাস্থ্য সহকারীরা সরকারিভাবে দেয়া পিপিই, হ্যান্ড গ্লাপস ও মাক্স পরিধান করেই এখানে মা ও শিশুদের নিয়মিত স্বাস্থ্য বিভাগে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।
ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে আসা একজন মা বলেন, কার্ডের নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ি আমি এখান থেকে সকল ধরণের সেবা পেয়েছি। প্রথম দিকে করোনার কারণে কিছুটা ভয় পেলেও ইপিআইয়ের দায়িত্বে থাকা স্বাস্থ্য সহকারীরা মোবাইল ফোনে এখানে আসার বার্তা পেয়ে মনে অনেক সাহস পেয়েছি।
তাছাড়া শিশুর ভবিষৎ স্বাস্থের কথা চিন্তা করে এখান থেকে নিয়মিত সেবা নিয়েছি।
সি.এইচ.সি.পি’র দায়িত্বে থাকা নাহিদা সুলতানা জানান, প্রতিদিনই সাধারণ রোগী, গর্ভবতী মা ও শিশুদের সেবা প্রদান করা হচ্ছে এখান থেকে।
ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিকে ইপিআইয়ের দায়িত্বে থাকা সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক মিতা রানী দাস জানান যে, এ করোনার মধ্যেও আমি এখানে নিয়মিতভাবে মা ও শিশুদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে আসছি।
তিনি আরো জানান, ছোট কেওয়ার কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে ইপিআইয়ের টিকা শিশু, মহিলা ও গর্ভবতী মায়েদের মাঝে প্রদান করা হয়ে থাকে।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৯,৫৪১,৮৫৮
সুস্থ
১২,৫৪৪,৬১০
মৃত্যু
৭২৪,০৭০

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১