শুক্রবার, ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
১০ই জুলাই, ২০২০ ইং
১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
ads

বাঞ্ছারামপুর বিভিন্ন কিন্টারগার্ডেন শিক্ষকদের মানবেতর জীবনযাপন 

বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় বে-সরকারি ভাবে পরিচালিত অনেকগুলো কিন্ডারগার্টেন  আছে যেগুলোতে অনেক ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া করে অনেক নামি দামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চান্স পায়। অনেকেই নামকরা ক্যাডেট কলেজে আমাদের জানাশুনা নরসিংদী কাদির মোল্লা স্কুল  এন্ড কলেজে লেখাপড়া করার যোগ্যতা  অর্জন করেছেন। আজ সেই মানুষ গড়ার  কারিগর শিক্ষক শিক্ষার্থী গণ মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
আমাদের  জানা মতে অনেক স্কুলের শিক্ষক মার্চ,২০২০ খ্রিস্টাব্দ  হতে বেতন ভাতা কিছুই পাচ্ছেন না। তাদের  বেতন ভাতা  আসে ছাত্রছাত্রীদের মাসিক বেতন  থেকে কিন্তু লগডাউনে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিগত মার্চ,২০২০ খ্রিস্টাব্দ হতে ছাত্রছাত্রীদের  বেতন বকেয়া থাকায় মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষকগণ বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
কোন ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক  বা সরকারি/ বে- সরকারি  সহযোগীতা পায়নি। মধ্য বিত্ত হওয়ার কারণে  তাঁরা কারো কাছে হাত পাততে পারছেনা।  সারেজমিনে আমাদের জানামতে তাঁরা ছাত্র ছাত্রীদের কাছে  বকেয়া বেতন চাওয়ায়  এক অভিভাবক   সম্মানিত সদস্য  করোনাভাইরাস লকডাউন চলাকালীন ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে বেতন না নিতে প্রতিষ্ঠান প্রধান কে ফোন  করেন। এমতাবস্থায় মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষকদের জন্য  সরকারি বে-সরকারি সহযোগীতা জরুরি  প্রয়োজন। ঈদের আগে সহযোগিতা  না পেলে শিক্ষকগণ ঈদ বোনাস  নামক শব্দ তো দূরের কথা  বেতন  না পেয়ে   অনেক প্রতিষ্ঠান বে- সরকারি  কিন্ডারগার্টেন  শিক্ষকরা  মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
সরকারি/ বেসরকারী/ এনজিও সমাজসেবা সেচ্ছাসেবী যে কোন সংগঠন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে  দেওয়ার জন্য  বিনীত  অনুরোধ করা যাচ্ছে।
মানুষ  মানুষের জন্যে জীবন জীবনের জন্যে দূর্যোগ মূর্হুর্তে এগিয়ে  আসা উচিত।
দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করতে হলে সবাই একত্রিত এক হয়ে কাজ করতে হবে।
 এ ব্যাপারে এক কিন্ডারগার্টেনের  প্রধান শিক্ষক (নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক)  বলেন, আমাদের এই বিদ্যালয় ১৪০  ছাত্রছাত্রী আছে, শিক্ষক আছে ১১ জন আমরা কারো টাকা-পয়সা বেতন দিতে পারি নাই

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৫,৪৯৪
সুস্থ
৮০,৮৩৮
মৃত্যু
২,২৩৮

বিশ্বে

আক্রান্ত
১২,৩০৬,২৮১
সুস্থ
৭,১৫৪,৬৪৫
মৃত্যু
৫৫৪,৮০৩

আর্কাইভ