সোমবার, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১০ই সফর, ১৪৪২ হিজরি
ads

বাঞ্ছারামপুর করোনা প্রতিরোধে দিন রাত কাজ করে যাচ্ছে জনি চেয়ারম্যান

বর্তমানে করোনা ভাইরাস একটি আতঙ্কের নাম। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ও সংক্রমন ঠেকাতে বাঞ্ছারামপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ২৪ঘন্টা নিরলস ভাবে কাজ করছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উজানচর ইউ পি চেয়ারম্যান কাজী জাদিদ আল-রহমান (জনি)।

উপজেলাবাসীর সুরক্ষা নিশ্চিত করনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে, বাজার নিয়ন্ত্রন করতে, সরকারী নির্দেশনা মেনে চলার জন্য মাইক হাতে প্রচার কার্যক্রম পরিচালনা ও কখনও ত্রাণের প্যাকেট হাতে অসহায় মানুষের পাশে বিরামহীন ছুটছেন তিনি প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে দেশের অনেক স্থানেই দেখা গেছে মানুষজন সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে কিংবা হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে নিজেদের মতো করে রাস্তা ঘাটে ঘুরে বেড়াচ্ছে। বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় বন্ধু বান্ধবের আড্ডাও ছাড়তে পারছেন না অনেকে। আবার কোন কোন শ্রমিক জীবনের তাগিদে পেটের দায়ে ছোট বড় যানবাহন নিয়ে সড়কে নামছেন। কেউ কেউ নানা অযুহাতে তেমন কোন প্রয়োজন ছাড়াই বাহিরে বের হচ্ছেন। আমরা অনেকেই বুঝতে চাইনি এই মহামারী কিভাবে মানুষের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে। আরে ভাই আপনাকে, আমাকে বুঝতে হবে।

কারন কার মধ্যে কি আছে সেটা কখনো বুঝা সম্ভব না। এসব গনজমায়েতে যদি কোন একজন ব্যাক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে বুঝতে হবে সেই আক্রান্ত ব্যাক্তি থেকে সেখানে যতগুলো লোক ছিলো তাদের মধ্যে কোন না কোন ব্যাক্তি ওই আক্রান্ত ব্যাক্তি থেকে করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। একই ভাবে সেই ব্যাক্তি থেকে অন্যান্যরাও এভাবে আক্রান্ত হবেন। আর এভাবেই করোনা সংক্রমন বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং থাকবে। তাই আমাদেরকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। অনির্দিষ্ট কালের জন্য কষ্ট করে হলে নিজ, নিজ বাসস্থানে থাকতে হবে।

এই মহামারী থেকে রক্ষা পেতে হলে এখন আমাদের মাত্র একটাই অবলম্ভন, সেটা হচ্ছে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা । অর্থাৎ সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা, প্রশাসনের নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যসেবা মেনে চলা। তবেই আমরা এই মহামারী থেকে অনেকেটা রক্ষা পাবো। তা না হলে এভাবে দিনের পর দিন করোনায় আক্রান্ত একেক জন ব্যাক্তি থেকে এটি ছড়িয়ে বিশালতা ধারন করবে। তখন চাইলও কিছুই করার থাকবেনা। আসুন আমরা একটু সচেতন হই। নিজে বাঁচি, পরিবার এবং দেশবাসীকে বাঁচাই। একটু কষ্ট করে সচেতনতা অবলম্ভন করি। কারন এই মহামারী করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হলে আমাদের এখন একটাই মাত্র অবলম্বন আর তা হলো সতর্কতা এবং জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা।

Share with Others

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৩৩,৩০৪,৬৬৬
সুস্থ
২৪,৬৩৪,২৯৭
মৃত্যু
১,০০২,৩৮৯

আর্কাইভ