শনিবার, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৮ই সফর, ১৪৪২ হিজরি
ads

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর স্ত্রী ও ছেলেও করোনায় আক্রান্ত

করোনাভাইরাসে (কোভিড ১৯) আক্রান্ত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা স্থীতিশীল রয়েছে। কাশি আর কিছুটা শ্বাসকষ্ট নিয়ে গত ২৯ মে থেকে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন।

এদিকে তাঁর স্ত্রী ও ছেলেও আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর স্ত্রীকে আজ সন্ধ্যায় একই হাসপাতালে করা হয়েছে। ছেলে বাসাতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

আজ রোববার গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের ইমেরিটাস অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আনোয়ারুল হাফিজ বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, আজ দুপুরে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘এখন জ্বর নেই। কাশি আছে, বুকে কফ আটকে আছে। একটু শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। অক্সিজেন নিচ্ছি। মানুষের এই বিপদের দিনে বহু কাজ করতে হবে। অনেক কিছু করা বাকি। কিটের এখনো অনুমোদন হলো না। দোয়া করবেন যেন দ্রুত কাজ শুরু করতে পারি।’

ডা. জাফরুল্লাহর স্ত্রী শিরীন হক ও ছেলে বারিশ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা জানতে চাইলে ডা. সৈয়দ আনোয়ারুল হাফিজ বলেন, ‘তার স্ত্রী মোটামুটি ভালো আছেন। বেশ জ্বর আছে। শ্বাসকষ্ট নেই। তার ছেলেও ভালো আছে। তার কোনো সমস্যা নেই।’

‘কিন্তু, (ছেলে) একটু নার্ভাস। কারণ, বাবা-মা দুই জনই করোনায় আক্রান্ত। নিজেও আক্রান্ত। বাড়িতে তিনি একা কী করবেন। এই চিন্তা থেকেই তিনিও হাসপাতালে থেকেই চিকিৎসা নিতে চাচ্ছেন’, বলেন ডা. সৈয়দ আনোয়ারুল হাফিজ।

তিনি বলেন, ‘এখন তার পরিবার ও আমরা চাচ্ছি হাসপাতালেই তাদের রাখা হোক। আমরা চাচ্ছিলাম, ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যেতে। কিন্তু, ডা. জাফরুল্লাহ তা চাচ্ছেন না। এটাও ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বড় একটা গুণ যে তিনি বলেন, “আমি এই হাসপাতাল তৈরি করেছি, আমি এখানেই চিকিৎসা করাবো। যদি মরতে হয়, এখানেই মরবো।”’

‘এখন পর্যন্ত যে চিকিৎসা প্রয়োজন, তা গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালেই দেওয়া হচ্ছে’, যোগ করেন অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আনোয়ারুল হাফিজ।

Share with Others

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৩২,৮০২,৬৭২
সুস্থ
২৪,১৯৯,৩৩০
মৃত্যু
৯৯৪,৩১১

আর্কাইভ