শনিবার, ২৭শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
১১ই জুলাই, ২০২০ ইং
১৯শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
ads

মাত্র ২০ মিনিট অভিযানে আদার দাম কমলো কেজিতে ২৩০ টাকা

দেশটুডে২৪ ডেস্ক: আসন্ন রমজান মাস এবং করোনাভাইরাসের প্রকোপ দুইয়ে মিলে চাহিদা বেড়েছে আদার। এই সুযোগে পণ্যটির অস্বাভাবিক দাম বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা। আমদানিকৃত এসব আদার এলসিতে সর্বোচ্চ মূল্য পড়ে কেজিতে ৯৭ টাকা। অথচ পাইকারী বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ২৪৫ টাকা দরে। আবার খুচরা বাজারে সেই আদাই বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ টাকা দরে। বুধবার রাজধানীর শ্যামবাজারে অভিযান চালিয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এসব তথ্য পেয়েছে।

অভিযান পরিচালনা করেন অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক (উপসচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পুরো অভিযানটি লাইভও করেন। সেখানে দেখা যায়, শ্যামবাজারে পাইকারী আড়ত ফয়সাল এন্টারপ্রাইজে মূল্য তালিকায় চায়না আদার দাম ২৪৫ টাকা লেখা। এরপর তিনি ক্রয়মূল্য দেখতে চান। কাগজপত্রে দেখা যায়, চট্টগ্রামের ব্রাদার্স ট্রেডার্স ইন্টারন্যাশনাল থেকে ৪৫০ ব্যাগ আদা কিনেছেন ওই আড়তদার। আমদানিককারকের দেয়া ওই রশিদে ব্যাগের সংখ্যা, পণ্যের ওজন, পরিবহন ভাড়া সব লেখা থাকলেও ক্রয় মূল্য লেখা নেই।

এটাকেই ‘শুভঙ্করের ফাঁকি’ বলে উল্লেখ করেন মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। এসময় তিনি সেই আমদানিকারকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলেন। তিনি নিজের পরিচয় দিয়ে ক্রয় মূল্য জানতে চাইলে খরচসহ ১১০ টাকা পড়েছে বলে জানান। তাহলে পাইকারী বাজারে কত বিক্রি করবে জিজ্ঞাসা করলে আমদানিকারক বলেন, আমরা বাজার অনুযায়ী বিক্রি করতে বলেছি। এতে ক্ষুব্ধ হন মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। তিনি বলেন, বাজারতো আপনারাই ঠিক করছেন। এটা ‘দুষ্টামি’। আপনারা এরকম করতে পারেন না। আমি আপনার তথ্য আমাদের চট্টগ্রাম অফিসে দিয়ে দিচ্ছি তারা আপনার সঙ্গে কথা বলবে। আপনাদের এই পণ্য কেজিতে সর্বোচ্চ এলসি মূল্য পড়েছে ৯৭ টাকা। এরচেয়ে বেশি কারো পড়েনি। খরচ হিসাব করে আপনারা মূল্য দিবেন।
এরপর আমদানিকারক ফোনে ফয়সাল এন্টারপ্রাইজকে আদার কেজি সবোর্চ্চ ১২০ টাকা নির্ধারণ করে দেন। বেশি দামে পণ্য বিক্রির অপরাধে ফয়সাল এন্টারপ্রাইজকে ২০ হাজার টাকা এবং মেসার্স আয়নাল অ্যান্ড সন্সকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
১২,৬৭৪,৭১৮
সুস্থ
৭,৪০২,৬৫২
মৃত্যু
৫৬৩,৯১২

আর্কাইভ