মঙ্গলবার, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১১ই সফর, ১৪৪২ হিজরি
ads

নবীনগরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পা কেটে নিল মোবারক মিয়ার প্রতিপক্ষ,আহত ৫০,গ্রেফতার ৩১

মো.নাছির উদ্দিন-বাঞ্ছারামপুর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া-প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রায় তিন যুগ ধরে দুই পক্ষের মধ্যে হয়েছে,একাধিক বার হামলা ও হয়েছে ১৫টি উপরে মামলা। দেশের দুর্দিনে ইতিহাসের সবচেয়ে বর্বর ও ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে৷

জানাযায় কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের আবু মেম্বারের ভাতিজা মোবারক হোসেনের পা কেটে জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান দিয়ে আনন্দ মিলিছ করেছে।

আজ ১২ই এপ্রিল রবিবার সকালে নবীনগর কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের থানাকান্দি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষ শুরু করেছে ইতিহাসের নৃশংসতম নিকৃষ্ট বর্বর মারামারি। তাতে উভয়পক্ষের ৬০ জন আহত হয়েছে। প্রতিপক্ষের মোবারক(৪০) নামের ব্যক্তির পা কেটে সে-ই পা হাতে নিয়ে জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান দিয়ে মিছিল করেছে

স্থানীয় সূত্রে জানাযায় জনগণের প্রতিনিধি হয়ে চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান যেখানে জাতির দুর্দিনে পাশে থাকার কথা সেখানে চেয়ারম্যান নিজেই ঝগড়ার নেতৃত্ব দিচ্ছে।
উল্লেখ্য জিল্লুর রহমান চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই পুরো ইউনিয়নে শুরু হয়েছে খুন, গুম, হত্যাসহ মারামারি, হামলা ও মামলা।
যখন মহামারী সংঘঠিত হয় তখন এই বর্বরমুহূর্তে গ্ৰামের তার বিরোধী প্রতিপক্ষের উপর নিষ্ঠুর ভাবে হামলা করে তার সমর্থকরা এবং তাদের বাড়িঘর ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে বলে স্থানীয়রা জানান।

নবীনগর মডেল থানার (ওসি) রনজিত রায় বলেন থানাকান্দি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে৷
এতে প্রায় ৫০-৬০ জনের অধিক আহত হয়। তাদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । ঘটনাস্থল থেকে উভয়পক্ষের ৩১জন কে আটক করা হয়েছে।তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Share with Others

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৩৩,৬০৩,৪৮৮
সুস্থ
২৪,৯১১,২৮৫
মৃত্যু
১,০০৭,৪৩৮

আর্কাইভ