রবিবার, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং
২রা সফর, ১৪৪২ হিজরী
ads

আজ কাজী খলিলুর রহমান এর বাবার ১ম মৃত্যু বার্ষিকী

আজ আমার বাবার ১ম মৃত্যু বার্ষিকী,২০১৯ সালের ঠিক এমন একটি দিনে সন্ধ্যা ৬:৪৫ মিনিটে বাবাকে হারাতে হয়েছে, বাঞ্ছারামপুর সরকারি হাসপাতালে বাবা আমাদের ছেড়ে চলে যান, যেখানে আমি আর মা উপস্থিত ছিলাম, সেদিনেই বুঝেছি বাবাকে হারানোর শোকটা কতটা কষ্টের। এক দিকে বাবা চলে যাচ্ছে আমার সামনে দিয়ে, অন্য দিকে আমি নিজেও অসুস্থ ছিলাম, আমি বাবার মাথার কাছে দাড়িয়ে ডাক্তারের দিকে তাকিয়ে ছিলাম, কিছুক্ষণ পর ডাক্তার বলল উনি আর পৃথিবীতে নেই! খুব কাছ থেকে দেখছি বাবার চলে যাওয়াটা, আমি পাথর হয়েগেছি অন্যদিকে আমি নিজে ও অসুস্থ ছিলাম, বিশ্বাস হচ্ছিল না আমার বাবা নেই। বিশ্বাসই বা হবে কি করে বাবা আর আমি দুপুরের খাবার খেলাম এক সাথে। সেই সময়টা মনে পড়লে দমবন্ধ হয়ে আসে । বাবাকে হারিয়ে আমি পাথর হয়ে গেছিলাম ।

আজ বাবার সাথে পথ চলার সময় গুলকে অনুভব করছি, চলার জীবনে বাবার ছায়াতেই বড় হয়েছি, বাবার ভালোবাসা, বাবার স্নেহ, বাবার আদর আজও আমার স্মৃতিতে সতেজ হয়ে ভাসে। আজ বাবাকে আমার খুব প্রয়োজন ছিলো বাবার সাথে আমার অনেক কথা বলার ছিলো আমি বলতে পারিনি তাই মনের লুকানো কথাগুলো আজও কারো সাথে ভাগাবাগি করতে পারিনি। যাদের বাবা আছে তারা জানেনা বাবার ছায়াটা কতটা তার সন্তানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ । বাবাহীন পৃথিবীটা বেশ অদ্ভুত ! যাদের বাবা নেই তারা কেবল জানেন বাবার অনুপুস্থিতিটা কেমন । এক সময় বাবার বুদ্ধিছাড়া কোন কাজেই সফল হওয়া যেতো না, আর আজ বাবাকে ছাড়া চলতে হচ্ছে প্রতিটা মুহূর্ত ।

বুদ্ধিহীন অবস্থায় চলতে হচ্ছে এই অচেনা জীবন শহরতলীতে। কিন্তু বাবার সেই স্মৃতি বাবার সেই উপদেশমূলক কথাগুলো আজও আমার অন্তরকে গভীরভাবে নাড়া দিয়ে যায়! বেশ কিছু আশা,স্বপ্ন ,কাজ অপূর্ণ থেকে গেল আমার, সবাই আমার বাবার জন্য দোয়া করবেন ।

কাজী খলিলুর রহমান’র ফেইসবুক থেকে সংগ্রহীত।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৩১,০১৩,২৪৯
সুস্থ
২২,৬১৪,৮২০
মৃত্যু
৯৬১,৭৫৬

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯