মঙ্গলবার, ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
৪ঠা আগস্ট, ২০২০ ইং
১৩ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
ads

ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের শীর্ষ পদে আলোচনায় সাবেক ছাত্র নেতা সোহেল শাহরিয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক: আওয়ামী যুবলীগের ইতোমধ্যে ৭তম কংগ্রেস গত ২৩ নভেম্বর শেষ হয়েছে। এতে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক সভাপতি শেখ ফজুলল হক মণির বড় ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশ সভাপতি ও উত্তরের সাবেক সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। তবে কংগ্রেস হয়নি যুবলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণের। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন দলের ২১তম কাউন্সিল ২০-২১ ডিসেম্বরের পর যুবলীগ উত্তর-দক্ষিণের কংগ্রেস। তাই যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে হাল ধরতে চান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সোহেল শাহরিয়ার (রানা)। ইতোমধ্যে তিনি এই পদটির জন্য প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা গেছে, সোহেল শাহরিয়ার ক্লিন ইমেজের পরীক্ষিত সাবেক ছাত্র নেতা। সাবেক ছাত্রলীগ ও বর্তমান কানাডা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা। তিনি ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী। তাকে এ গুরুত্বপূর্ণ পদে দেখতে চান নেতাকর্মীরাও। সোহেল শাহরিয়ার রানা বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত চাঁন মিয়া ও হামিদা বেগমের সন্তান। তার পৈত্রিক নিবাস ঢাকার শাহজাহানপুরের খিলগা বাগিচা এলাকায়। স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে এমবিএ পাস করেছেন।

স্কুল জীবনেই ছাত্রলীগের রাজনীতির মধ্য দিয়ে সোহেল শাহরিয়ার রানা আওয়ামী রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। তিনি (১৯৯৫-১৯৯৬) শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের সদস্য, (১৯৯৭- ২০০২) হাবিবুল্লাহ্ বাহার ইউনিভার্সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, (২০০২-২০১১) পর্যন্ত বৃহত্তর মতিঝিল থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০১১ সালে ফ্রিডম মানিক ও ক্যাসিনো খালেদের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে প্রাণভয়ে কানাডায় চলে যেতে বাধ্য হন। কানাডায় গিয়েও তিনি আওয়ামী আদর্শ থেকে বিন্দুমাত্র বিচ্যুত হননি। প্রবাসে দলকে সুসংগঠিত করতে করছেন। সেখানে (২০১২-২০১৫) টরেন্টো আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং (২০১৮-বর্তমান) কানাডা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বপালন করছেন।

২০০৪-২০০৭ সাল পর্যন্ত বিএনপি জামায়াতের শাসনামলে সোহেল শাহরিয়ার কমপক্ষে ১২টি মামলার শিকার হন। এসব মামলায় তিনি প্রায় দুই বছর কারাভোগ করেন। আওয়ামী লীগের দু:সময়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ায় তাকে সন্ত্রাসী হিসেবে আখ্যায়িত করে বিরোধীরা। ২০০৮ সালে দল ক্ষমতায় আসার পরও ত্যাগী ছাত্রলীগ নেতা সোহেল শাহরিয়ার ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে দেশে রাজনীতি করতে পারেননি। ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানাডা সফরে গেলে সোহেল শাহরিয়ার তার সঙ্গে দেখা করেন। ছাত্রলীগ করতে গিয়ে অত্যাচার নির্যাতনের কথা সোহেল শাহরিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেন। পরে বঙ্গবন্ধু কন্যা তাকে দেশে ফিরে এসে রাজনীতি করার আহ্বান করেন।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি শহীদুল আলম সুমন বলেন, সোহেল শাহরিয়ার বিএনপি জামায়াতের শাসনামলে নানাবিধ নির্যাতন সহ্য করে আওয়ামী লীগের দু:সময়ে সাহসিকতার সঙ্গে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ১/১১ সময়ে শেখ হাসিনার মুক্তির আন্দোলনেও সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। এজন্য তার রক্তও ঝরেছে। সোহেল শাহরিয়ার ছোট বেলা থেকে ছাত্রলীগ করে এ পর্যন্ত এসেছেন। তার বাবা আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ ছিলেন।

সোহেল শাহরিয়ার বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রাজনীতি করি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ছাত্রলীগ করেছি। আওয়ামী লীগের সুসময়ে অনেকেই নেতা হয়েছেন, যারা কখনোই দল করেননি। ব্যবসা আমার পেশা, রাজনীতি আমার নেশা। আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হয়ে দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সাধারণ পদে প্রার্থী হয়েছি। আশা করি অতীত ও বর্তমান বিবেচনা করে দল আমাকে মূল্যায়ন করবে।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৮,৪৫৬,৬৬৫
সুস্থ
১১,৬৯০,৬৭০
মৃত্যু
৬৯৭,৪৩৫

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০