সোমবার, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
১০ই আগস্ট, ২০২০ ইং
১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
ads

চা পানীয় শেষে খাওয়া যাবে কাপও!

রেস্তোঁরা ও কফি হাউসগুলোয় চা-কফি ও অন্যান্য পানীয় পরিবেশনের জন্য প্লাস্টিক বা কাগজের তৈরি ওয়ান টাইম কাপ ও গ্লাস ব্যবহার করা হয়। ডিসপোজেবল এ কাপ ও গ্লাসগুলো ব্যবহারের পর যখন ফেলে দেয়া হয় তখন তা পরিবেশের ক্ষতি করে। আর তাই বর্তমানে খাবার এবং পানীয় পরিবেশন ও প্যাকেজিংয়ের ক্ষেত্রে পরিবেশবান্ধব উপায় অবলম্বনের প্রতি জোর দিচ্ছে অনেকেই।

সম্প্রতি ভারতের হায়দরাবাদ ভিত্তিক কোম্পানি জিনোমল্যাবস বায়ো প্রাইভেট লিমিটেড নিয়ে

এসেছে এমন এক ধরনের কাপ যাতে অনায়েসে যেকোনো ঠাণ্ডা ও গরম পানীয় পরিবেশন করা যাবে। আবার পানীয় শেষ করে কাপটিও কুড়মুড়িয়ে খেয়ে ফেলা যাবে। ভাবতে অবাক লাগছে তাইনা!

উৎপাদক প্রতিষ্ঠানের দাবি, প্রাকৃতিক শস্য থেকে তৈরি এ কাপ সম্পূর্ণ ভোজ্য ও সব ধরণের পানীয় ধরে রাখতে সক্ষম। হায়দরাবাদ ভিত্তিক বেসরকারী এ প্রতিষ্ঠান ‘ইট কাপ’ নামের এ কাপটি তৈরি করেছে ডিসপোজেবল অন্যান্য কাপের বিকল্প হিসাবে। তাদের যুক্তি, এই কাপ ব্যবহারের ফলে কাগজের কাপ তৈরির জন্য গাছ কাটতে হবে না ও এমন কোনো কাপ ব্যবহার করতে হবে না যা কিনা শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক অশোক কুমার বলেন, প্রাকৃতিক শস্য থেকে তৈরি ‘ইট কাপ’ প্লাস্টিক ও কাগজের তৈরি কাপের কার্যকর বিকল্প হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এসব কাপের নেতিবাচক পরিবেশগত প্রভাব ও কার্বন দূষণ এড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে ‘ইট কাপ’।

প্রস্তুতকারকদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ইট কাপে রাখা যাবে সব ধরনের ঠাণ্ডা ও গরম পানীয়, স্যুপ, ডেজার্ট, দই ইত্যাদি। মাজার ব্যাপার হচ্ছে, এসব খাবার ও পানীয় রাখার পর ৪০ মিনিট পর্যন্ত মচমচে থাকবে কাপটি। তাদের ভাষ্য, যেহেতু কোনো কৃত্রিম প্রলেপ এই কাপে দেয়া হয়নি, সেহেতু কাপে রাখা খাবার ও পানীয়র স্বাদও বদলাবে না।সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
২০,০২১,৩২১
সুস্থ
১২,৮৯৬,৮৯৫
মৃত্যু
৭৩৩,৯১৮

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১